মোশাররফ করিমের প্রশংসায় কলকাতার মিডিয়া

0
4

ভারতের পশ্চিমবঙ্গে মুক্তি পেয়েছে মোশাররফ করিম অভিনীত প্রথম চলচ্চিত্র ডিকশনারী।

মকর ক্রান্তি চট্টোপাধ্যায়ের চরিত্র অভিনয় করে ব্যাপক প্রশংসা কুড়িয়েছেন বাংলাদেশের জনপ্রিয় এ অভিনেতা।

তার অভিনয়ের মুগ্ধ প্রশংসা করেছে ভারতীয় মিডিয়া।

আনন্দবাজার পত্রিকার প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, ‘এ সিনেমায় নজর কেড়েছেন মকর ক্রান্তির ভূমিকায় মোশাররফ করিম।

কলোনিয়াল (এবং ক্লাবের নিত্যদিনের মদ্যপানের) হ্যাংওভার কাটিয়ে উঠতে না পারা মকরের অর্থনৈতিক উচ্চাকাঙ্ক্ষা, ছেলেকে ইঞ্জনিয়ার বানানোর মধ্যবিত্ত বাসনা ও ইংরেজি ভাষা বেগতিক হয়েও তা রপ্ত করার আপ্রাণ চেষ্টা কখনও হাসির উদ্রেক করে, কখনও করুণার- সবটাই মোশাররফ ব্যক্ত করেছেন সমান দক্ষতায়।’

হিন্দুস্তান টাইমসের খবরে বলা হয়, বাংলাদেশি অভিনেতা মোশারফ করিম ছবিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকায় অভিনয় করেছেন।

সিনেমার গল্প
ছবিতে সমান্তরালে চলে দুই পরিবারের কাহিনী। একদিকে থাকে ঢালাই ব্যবসাদার মকর ক্রান্তি চট্টোপাধ্যায় (মোশারফ করিম), তার স্ত্রী শ্রীমতি (পৌলমী বসু) ও পুত্র রাকেশ (সাগ্নিক চট্টোপাধ্যায়) সমেত রাজারহাটের ঝাঁ চকচকে অট্টালিকায় এক পুরোদস্তুর শহুরে জীবন।

অন্যদিকে বন বিভাগের চাকরিসূত্রে পুরুলিয়ার বরাভূমের অশোক (আবির চট্টোপাধ্যায়) আর তার স্ত্রী স্মিতা (নুসরত জাহান) এবং মেয়ে চানুর প্রকৃতির কোলে নিভৃত জীবন।

এই দুই পরিবারের মধ্যে এক অদ্ভুত সংযোগ হল সুমন (অর্ণ মুখোপাধ্যায়)- পারিবারিক সূত্রে শ্রীমতির ভাই, আবার পড়াশোনার সূত্রে অশোকের কলেজের জুনিয়র। বরাভূমের এক কলেজের ইংরেজি অধ্যাপক সুমনের সাথে স্মিতার পরকীয়া সম্পর্ক নাড়িয়ে দেয় অশোক-স্মিতার পারিবারিক শান্তিপূর্ণ সহাবস্থানের ছক, ছবিতে যোগ করে বহুমাত্রিক সম্ভাবনা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here